সাম্প্রতিক

মিশন ইম্পসিবল নতুন পর্ব

12358529_10সুবর্ণ বাগচী : মুক্তি পেয়েছে দর্শকনন্দিত অ্যাকশন স্পাই ম্যুভি ‘মিশন ইম্পসিবল’ নতুন পর্ব। টম ক্রুজ অভিনীত ম্যুভি সিরিজটির ইথান হান্ট চরিত্রটি ইতোমধ্যে জেমস বন্ডের সমান মর্যাদার আসন দখল করে নিতে পেরেছে। এবারকার পর্বটির উপনাম ‘রগ নেশন’, যেখানে সেই মিস্টেরিয়্যাস কিলার সিন্ডিকেটের পিছু ধাওয়া করতে দেখা যায় সিনেমাবর্ণিত আইএমএফ তথা ইম্পসিবল মিশন্স ফোর্স প্রতিষ্ঠানের দুর্ধর্ষ ইন্টেলিজেন্স অ্যাজেন্ট ইথান হান্টকে।

এই সিরিজ ম্যুভিটির যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৯৬ সালে। একে একে চারটি ফিল্ম প্রোডাকশন গগনচুম্বী খ্যাতি, দর্শকপ্রিয়তা আর কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার কামিয়ে ২০১৫ সালে এসে এর পঞ্চম পর্বটিও যথাপূর্ব সফলতা লাভ করেছে। এ-বছর জুলাই মাসে রিলিজ হয়েছিল সর্বসাম্প্রতিক পর্বের, এরই মধ্যে এন্তার পজিটিভ রিভিয়্যু জুটেছে অ্যাকশন ফ্র্যানচাইজ ম্যুভি হিশেবে।

ব্রুস গেলারের নির্মিত আখ্যান অবলম্বী সিনেমার এই এপিসোডের স্ক্রিনপ্লে এবং পরিচালনা করেছেন ক্রিস্টোফার ম্যাক্যুয়ারি। সিনেমার নায়ক চরিত্রে রূপদানকারী টম ক্রুজ প্রযোজকদের মধ্যেও একজন, অর্থলগ্নি করেছেন লাভের মুখ দেখবারই আশায়। দেড়শ মিলিয়ন ইউএস ডলারে বানানো ম্যুভিটি ইতোমধ্যে এনেছে প্রায় সাতশ মিলিয়ন উঠিয়ে।

একই বছরে জেমস বন্ড নতুন ম্যুভিটির সংলগ্ন সময়ে মিশন ইম্পসিবলের হাইওয়ে দাবড়ানো দেখে অনেকেই তুলনা করে দেখছেন কে এগিয়ে আর কে রেসের শেষে পেছনে রইল পড়ে। এমনিতে অবশ্য দুই সিনেমার পৃথক ফিচার থাকলেও সাদৃশ্যও কম নয়। কিন্তু বন্ড এবং হান্ট চরিত্রের মধ্যে কে বেশি মারদাঙ্গা আর কে বেশি ইন্টেলিজেন্ট, এই লাইনে দর্শকদের অনেকেই পরপর ছবিদ্বয় দেখে উঠে কম্পেয়ার করতেই চাইতে পারেন।

টম ক্রুজ তো জবাব নাই, কিন্তু কোথাও কি বয়সভার আক্রমণ করছে ক্রমে এই দাপুটে তারকাটিকে? দেখার পর দর্শক নিজেদের আলোচনায় এইসব নিয়েও কথা চালাতে পারবেন। অবশ্য যথারীতি মিশন ইম্পসিবল ম্যুভির কোনো আইটেমই মিসিং মনে হবে না দেখতে বসে। মোটরবাইকিং তো আছেই, আছে উড়োজাহাজের উইং চেপে ক্রুজের স্টান্টসিন। সেক্স আছে, ভায়োলেন্স আছে বুদ্ধিদীপ্ত, সুনিপুণ মানুষখুন এবং সুরভিত যৌনতা, প্রাযুক্তিক গোয়েন্দাবৃত্তি এবং এস্পায়োনাজ্ দুনিয়ার নানান কারিকুরি সবই আছে।

রেবেকা ফার্গুস্যন্ অভিনয় করেছেন এই সিনেমার প্রধান নারী চরিত্রে। এই স্যুইডিশ অভিনেত্রীটিকে এর আগে এলিজাবেথ উডভিল চরিত্র রূপায়ণে দেখা গিয়েছিল অত্যন্ত শক্তিশালীভাবে টেলিভিশনড্রামা ‘দ্য হোয়াইট ক্যুইন’ সিরিজে। মিশন ইম্পসিবল এই এপিসোডে রেবেকার তীক্ষ্ণ যৌনাবেদন ও দ্রুতগতির অ্যাকশন ম্যুভমেন্টগুলো উপভোগ্য হয়েছে।

মিশন ইম্পসিবল ষষ্ট পর্বের তোড়জোড় ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। সম্প্রতি টম ক্রুজ একটি টিভিটকে এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নেক্সট এমএই-সিক্স এপিসোডে ক্রুজ ছাড়া আর কারা সম্ভাব্য অভনয়কারী ইত্যাদি জানা না-গেলেও ২০১৬ সালের শুরুর দিকেই শ্যুটিং শুরু হবে বলে এর অন্যতম প্রোডিউস্যর টম ক্রুজ জানিয়েছেন।

 

Comments

comments

সুবর্ণ বাগচী

সুবর্ণ বাগচী

রাশপ্রিন্ট কন্ট্রিবিউটর

লেখকের অন্যান্য পোস্ট

Tags: 

লেখকের অন্যান্য পোস্ট :

সাম্প্রতিক পোষ্ট

লেখকসূচি