সাম্প্রতিক

লা লা ল্যান্ড- আত্মার লগে উপহাস । হাসান শাহরিয়ার

লা লা ল্যান্ড-এর কথা ভাবতেছি। একটা রাস্তা ধইরা আমাদের হাঁইটা যাইতে হইবো। এক লগে অথবা আলাদা হইয়া। আমরা আলাদা থাকতেছি। বুড়া হইতেছি। একদিন মইরা যাবো একজনের পরে আরেকজন। একলগে থাকলেও এক ঘটনাই ঘটতো। তাইলে আলাদা থাকাটারে এইভাবে আলাদাভাবে আইডেন্টিফাই করতেছি কেন? এক লগে থাকতে পারতাম বা থাকা গেলে কী হইতো — এইরকম একটা চিন্তা আছে; তাই। চিন্তা মানে একটা শূন্যতারে ভরাট করার চেষ্টা। ভরাট হইলেও — তারপরও — একটা খালি খালি ভাব থাকে। যেহেতু চিন্তা একটা ভার্চুয়াল শরীর কেবল। এইটা কোনভাবেই রিয়েল ফিজিক(physique) এর জায়গা ফিল আপ করতে পারে না।

লা লা ল্যান্ড — যেহেতু ক্যামেরা ব্যবহার করতে পারছে; এই বাস্তবের ভিতর সে অনেকগুলা বাস্তবতা নিয়া ডিল করতে পারে। তুমি আর আমি এক লগে না থাকায় — তোমার আর আমার চিন্তারে বাস্তবে আমরা একটা ফিজিক দিতে পারছি। মানে নিজের নিজের স্বপ্নরে বাস্তব করা গেছে। আর ভাল আছি। মানে স্বপ্নটারে এচিভ করতে হইলে — আমাদের দুইটা রাস্তা আলাদা থাকা দরকার ছিল। ঠিক — আমরা এক লগেও থাকতে পারতাম। তবে এই থাকাটারে সারা জীবন আমাদের টাইনা নিয়া যাইতে হইতো। ইচ্ছা না থাকলেও। লা লা ল্যান্ড- এইসবই তোমারে আর আমারে দেখাইয়া যায়; বুঝাইতে চায়। মাইনা লইতে বলে।

লা লা ল্যান্ড — এই সোসাইটিতে আপনারে নিঃসঙ্গ করার পরেও একটা অল্টারনেটিভ স্পেইসের জোগান দিয়া রাখে। অথবা আপনার ইমোশন, ডিজায়ার, ইগো — এইসব নিয়া একধরণের তামাশা করে। এদের একটা থেইকা আরেকটারে আলাদা কইরা একটার লগে আরেকটার রেইস লাগাইয়া দেয়। এইভাবে শেষে — আপনারে এইসবের মুখোমুখি কইরা দেয় এবং আপনারেই বাধ্য করে — এদের কোন একটারে বাইছা নিতে।

আর এইভাবে লা লা ল্যান্ড আমগো লগে সিধা একটা মশকরা করে। একটা রিলেটিভ মিথ্যা দিয়া বাঁইচা থাকার খুবই হালকা একটা লজিক তৈরি করে। বরং এক লগে থাকতে পারলেও তুমি আর আমি মিইলা আমাগো নিজের নিজের স্বপ্নরে বাস্তবায়ন করতে পারতাম; এইরকম একটা পসিবিলিটির দিকে লা লা ল্যান্ড যায় নাই; যাইতে চায় না। কারণ সে একটা ব্রোকেন মাইন্ড নিয়া ডিল করতেছে শুধু। এই মাইন্ড কীভাবে, কী বাস্তবতায় ভাঙছে; এই মাইন্ড কী কী পরিস্থিতিতে ড্যামেজড, আউট অব ট্র্যাক — তার দিকে খেয়াল নাই তার। অথবা ইচ্ছা কইরা সে এই দিকটা নিয়া আলাপ করতে চায় না। সম্ভবত এই সংকটের মুখোমুখি হইতে গেলে তার ক্রিয়েটিভিটির ভণ্ডামি সে লুকাইয়া রাখতে পারবে না। সম্ভবত এইটা এমন এক সংকট যা আমরা যেইভাবে যেইখানে আছি — সেইখানে অবধারিত। লা লা ল্যান্ড এই জায়গাটারে আগলাইয়া রাখতে চায়। এরে ভাঙ্গার ইচ্ছা তার নাই। আর এই জায়গাটার মত আপনারেও তার দরকার; দরকার যে কোনভাবে আপনে বাঁইচা থাকেন। এইটা কেন; তা নিয়া আপনে বরং ভাইবা দেখতে পারেন।

লা লা ল্যান্ড — এই সোসাইটিতে আপনারে নিঃসঙ্গ করার পরেও একটা অল্টারনেটিভ স্পেইসের জোগান দিয়া রাখে। অথবা আপনার ইমোশন, ডিজায়ার, ইগো — এইসব নিয়া একধরণের তামাশা করে। এদের একটা থেইকা আরেকটারে আলাদা কইরা একটার লগে আরেকটার রেইস লাগাইয়া দেয়। এইভাবে শেষে — আপনারে এইসবের মুখোমুখি কইরা দেয় এবং আপনারেই বাধ্য করে — এদের কোন একটারে বাইছা নিতে।  

মুভিঃ লা লা ল্যান্ড
রিলিজড ডেইটঃ ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬
অভিনয়ঃ এমা স্টোন, রায়ান গসলিং

Comments

comments

হাসান শাহরিয়ার

হাসান শাহরিয়ার

জন্ম ৮ নভেম্বর ১৯৮৫, একটি কবিতার বই রেরিয়েছে ‘বালির ঘর’ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ jhs.phy@gmail.com

লেখকের অন্যান্য পোস্ট

লেখকের সোশাল লিংকস:
Facebook

Tags: , ,

লেখকের অন্যান্য পোস্ট :

সাম্প্রতিক পোষ্ট

লেখকসূচি