সাম্প্রতিক

সিনেমা পারাদিসো লইয়া কাবজাব । আবু তাহের তারেক

সিনেমা পারাদিসো দেখার পর কারো কি ইচ্ছা হইছিলো দূরে, প্রবাসে যাইবার?

বাইরাইবার ইচ্ছা তো আগ থিকাই ছিল আমার। পারাদিসো, ম্যাডনেস ঢুকাইয়া দিল আর কি। তো, বাহির আমি হইলাম।…

হইবার পর তো দেখতেছি— অনেক হিসাব আগে করি নাইক্কা। এই যে পারাদিসো সিনেমায় জার্নির কথা বলল—দূরে যাইবার কথা, এখন; এই দূর থিকা ফিইরা গিয়া, কারে পাইবেন আপনি? তো, বাহির হওয়া আর ফিইরা যাওয়ার মাঝখানে যে জীবন, যে বিপন্নতা, হেইটা পারাদিসো সিনেমায় পাই নাই। যা পাই, তা হইল— নায়কের ফুটফুটে এক বাল্যকাল আর তীর্থ যাত্রার পরের মিলন। এর লাগি, পারাদিসো সিনেমা হয়তো যতটা সুগম, মোলায়েম আর তৃপ্তির— ততটা শ্বাসরুদ্ধকর না।

তো, পারাদিসো সিনেমায় যে জার্নির অনুপস্থিতি, সেইটারে ওডিসির কাহিনী দিয়া পুরা করন যায়?

জীবনের প্রাইম টাইমে আপনি জিন্দেগীর পথে বাইরাইলেন। তো, জিন্দেগী আপনারে কত কালাপানির ঘাট দেখায়। কত হালার পুতামি করে। যখন আইলেন, আপনার চুল গেল পাইকা। চামড়া গেল কুঁচকাইয়া। তো থাকল টা কী? ওডিসিউসের লাগি পেনিলোপির হাহাকার রইল। আর রইল, বাড়িতে ফেরার লাগি ওডিসিউসের সংগ্রাম।

জীবন কি তাইলে স্বপ্নই একটা, যা বাস্তব হইব বইলা, আর হয়না? আসলে, সিনেমা পারাদিসো বা ওডিসিউস যে জার্নির কথা আমরারে কয়, বিদেশ আসুন বা নাই আসুন; সে জার্নি তো কম বেশ সবার জীবনেই থাকে আমরার, না? এইসব ভাবতেছি, আর চিন্তা করতেছি— পারাদিসো সিনেমায় হলুদের এতো গাঢ়ত্ব ছিল কেন? আমরার লাইফে যে জার্নি— উইয়ার্ড, আনহোপফুল; তার বেদনারে তুইলা ধরবার লাগি?

বাট সিনেমা পারাদিসো, ওডিসি— এইগুলা তো জীবনের জয়গানই গাইছে। জীবন তো মিঠা ই।…

আবু তাহের তারেক

জন্ম: ২৬ জানুয়ারী, ১৯৮৫। সুহিত্পুর, ছাতক, সুনামগঞ্জে। সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতক, স্নাতকোত্তর। ব্রিটেনে বিপিপি ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর। বর্তমানে পর্তুগালে বসবাসরত। ই মেইল: tarek_sius@yahoo.com

লেখকের অন্যান্য পোস্ট

Tags: ,

লেখকের অন্যান্য পোস্ট :

সাম্প্রতিক পোষ্ট

লেখকসূচি